রবিবার, ২০ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০২:৫২ পূর্বাহ্ন৫ই আশ্বিন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

নোটিশঃ
ওয়েবসাইটে আপনাকে স্বাগতম। নাগরিক আইটি থেকে কম মূল্যে ওয়েবসাইট বানাতে আজই যোগাযোগ করুন। কল করুন- ০১৫২১ ৪৩৮৬০১
সংবাদ শিরোনাম :
শোকের মাসে যুবলীগের উদ্যোগে ৫ শতাধিক পথ শিশু ও ছিন্নমূল মানুষের মাজে খাবার বিতরণ চরনারচর ইউনিয়নে উপকার ভোগীদের কার্ড বিতরণ করেন চেয়ারম্যান রতন তাং বঙ্গবন্ধু ফাউন্ডেশন যুক্তরাজ্য শাখার আয়োজনে আলোচনা সভা ও দোয়া অনুষ্ঠিত দক্ষিণ সুনামগঞ্জের গাগলী গ্রামে ডোবায় পড়ে দুই শিশুর মৃত্যু উত্তর শ্রীপুর ইউনিয়নে ছাত্র কল্যাণ পরিষদ কমিটি গঠন সার্চ মানবাধিকার সংগঠনের প্রচেষ্টায় নিষ্পত্তি হলো দুই ভাইয়ের বিরোধ ২১শে আগষ্ট নিহতদের স্বরণে সুনামগঞ্জ জেলা আওয়ামীলীগ ও সহযোগি সংগঠনের শোকর‌্যালী,সভা,দোয়া অনুষ্ঠিত সদ্য প্রয়াত সাবেক মেয়র কামরানের কবর জিয়ারত করেন ব্যারিষ্টার এম.এনামুল কবির ইমন বঙ্গবন্ধুর মৃত্যু বার্ষিকী উপলক্ষে স্মরণ সভা ও দোয়া মাহফিল দক্ষিণ সুনামগঞ্জে ১০বৎসরের শিশুকে ধর্ষন ধর্ষক হাশিম গ্রেফতার
ইতালিতে মাফিয়াদের বিরুদ্ধে লড়েছিলেন যে বাঙালীরা

ইতালিতে মাফিয়াদের বিরুদ্ধে লড়েছিলেন যে বাঙালীরা

অভিবাসীরা যে দেশে যায়, তারা সে দেশের ওপর বোঝা হয়ে দাঁড়ায় বলেই একটা ধারণা প্রচলিত।

কিন্তু বিশেষজ্ঞরা বলছেন, অভিবাসীরাও সে দেশের সমাজ জীবনে নানা ধরনের ইতিবাচক ভূমিকা রাখেন, যা নিয়ে প্রচার খুব হয় কমই।

তেমনি একটি ঘটনা ঘটিয়েছেন ইতালির সিসিলি দ্বীপের শহর পালেরমোতে বাংলাদেশি এবং অন্যান্য অভিবাসীরা।

সেখানে তারা ইতালির কুখ্যাত অপরাধী চক্র মাফিয়ার বিরুদ্ধে ঐক্যবদ্ধভাবে রুখে দাঁড়িয়েছিলে। এর জেরে বহু মাফিয়া সদস্যকে আটক করে বিচার করা হয়।

আজ বিশ্ব অভিবাসী দিবসে সেই গল্পই বলছিলেন ইতালির পালেরমো ব্যবসায়ী আশরাফ উদ্দিন।

শুরুর দিকে যেভাবে নির্যাতিত হয়েছেন

তিনি বলছেন, “প্রথম যখন এখানে আমরা আসছিলাম, তখন আমরা সংখ্যায় কম ছিলাম। তখন বাঙালিরা এখানে খুব একটা প্রতিষ্ঠিত ছিল না। ওরা বিভিন্ন সময় আমাদের ছিনতাই করতো, রাস্তাঘাটে মারত, এরকম ঘটনাগুলো ঘটতো।”

যখন নির্যাতনের শিকার হতেন তখন তারা বিদেশের মাটিতে সংখ্যায় কম ছিলেন বলে কিছু বলতে পারতেন না। বিশেষ করে মাফিয়াদের বিরুদ্ধে লড়াই করার সাহস তাদের ছিল না।

স্থানীয়রা অপেক্ষাকৃত শক্তিশালী ছিল তাই তাদের বদলে বিদেশের মাটিতে দুর্বল অবস্থায় থাকা মানুষদের মাফিয়ারা টার্গেট করতো। তাদের ব্যবসা প্রতিষ্ঠানগুলোতে মাফিয়ারা চাঁদাবাজি করতো।

আশরাফ উদ্দিন বলছেন, “২০০০ সালের পর থেকে আমরা বাঙালিরা যখন একটু সামনে এগুতে থাকলাম, তখন ওরা আমাদের পিছু নিলো। তারা দোকান এসে বলতো একটা অনুষ্ঠান করবো বা গির্জার জন্য টাকা তুলছি। এইরকম সমস্যাগুলো করতো ওরা।”

শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  





themesba-zoom1715152249
©সর্বসত্ত্ব সংরক্ষিত।
Developed By: Nagorik IT