সোমবার, ৩০ নভেম্বর ২০২০, ০২:০৭ পূর্বাহ্ন১৫ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

নোটিশঃ
ওয়েবসাইটে আপনাকে স্বাগতম। নাগরিক আইটি থেকে কম মূল্যে ওয়েবসাইট বানাতে আজই যোগাযোগ করুন। কল করুন- ০১৫২১ ৪৩৮৬০১
সংবাদ শিরোনাম :
হাওর বিষয়ক মন্ত্রণালয় বাস্তবায়ন আন্দোলন ফোরামের সংবাদ সম্মেলন স্বাস্থ্য পরিদর্শক ও স্বাস্থ্য সহকারীরা বেতন বৈষম্য নিরসনের দাবীতে কর্মবিরতি পালন নাজমুল হকের অকাল মৃত্যুতে নারী নেত্রী ফেরদৌস আরা পাখি”র শোক ও সমবেদনা দিরাই উপজেলা চেয়ারম্যানের সাথে মত বিনিময় করেন ডক্টর সামছুল হক চৌধুরী মাদ্রাসা উন্নয়নে নগদ অর্থ প্রদান করেন যুক্তরাজ্য প্রবাসী আবু বক্কর খাঁন সার্চ মানবাধিকার সংগঠনের উদ্যোগে ড. সামছুল হক চৌধুরী ও আবু বক্কর খাঁনকে সংবর্ধনা প্রদান এমপিও নীতিমালার বৈষম্য দূরীকরণের দাবীতে মানববন্ধন সুনামগঞ্জে যুব মহিলালীগের সদর উপজেলা ও পৌর কমিটি অনুমোদন স্মরণ উপ-সাংস্কৃতিক সম্পাদক নির্বাচিত হওয়ায় যুবলীগ নেতা হৃদয়’র অভিনন্দন দেশ ও প্রবাসের নতুন স্থান পেয়েছেন সার্চ মানবাধিকার সোসাইটি কেন্দ্রীয় কমিটিতে
গোপালগঞ্জের কোটালীপাড়ায় ২৪৫২০ হেক্টর জমির ৭৩ শতাংশ ধান কাটা সম্পন্ন

গোপালগঞ্জের কোটালীপাড়ায় ২৪৫২০ হেক্টর জমির ৭৩ শতাংশ ধান কাটা সম্পন্ন

প্রমথ রঞ্জন সরকার, গোপালগঞ্জ প্রতিনিধি।

গোপালগঞ্জের কোটালীপাড়া উপজেলায় চলতি বোরো মৌসুমে ৭৩ শতাংশ ধান কাটা সম্পন্ন হয়েছে।

উপজেলা কৃষি অফিসের হিসাব অনুযায়ী প্রতিটি ইউনিয়নের ধান কাটা হয়।
উপজেলা কৃষি অফিসার কৃষিবিদ নিটুল রায় বলেন এ উপজেলায় বোরো ধান আবাদ হয়েছে ২৪৫২০ হেক্টর। এর মধ্যে কাটা হয়েছে ১৭৯২৩ হেক্টর। এতে প্রায় ৭৩ শতাংশ ধান কাটা সম্পন্ন হয়েছে। যে ধান রয়েছে সেই ধান আশাকরি অল্প দিনের মধ্যেই কাটা শেষ হয়ে যাবে ।

উপজেলা উপ-সহকারী উদ্ভিদ সংরক্ষণ কর্মকর্তা কৃত্তিবাস পান্ডে বলেন, এবছর করোনা ভাইরাসকে উপেক্ষা করে উপজেলা প্রশাসনের উদ্যোগে যে ব্যতিক্রমী পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে তা হল চাষীর হাসি সেল গঠন, যার সার্বিক সহযোগীতায় উপজেলা কৃষি অফিস কোটালীপাড়া। এছাড়া কৃষি অফিসের উদ্যোগে উদ্বুদ্ধকরণের মাধ্যমে বিভিন্ন প্রকল্পের কৃষক গ্রুপ ( রাজস্ব, জিকেবিএসপি, এনএটিপি প্রভৃতি) দিয়ে ধান কেটে দেয়া হয়েছে।
অপরদিকে ছাত্রলীগ ও জনপ্রতিনিধিগন উপজেলায় শ্রমিক সংকট নিরসনে বোরো চাষীদের পাকা ধান কেটে ঘরে তুলে দিতে নানামুখী পদক্ষেপ গ্রহন করেছেন।

এব্যপারে উপজেলার হিরন ইউনিয়নে কর্মরত উপ-সহকারী কৃষি কর্মকর্তা পার্থ প্রতিম বৈদ্য বলেন, ইউনিয়নের সার্বিক ধান কর্তন সন্তোষজনক ভাবে এগিয়ে যাচ্ছে।
ইউনিয়নের বিভিন্ন কৃষক গ্রুপ, কৃষকের হাসি সেলের সদস্য এবং ছাত্রলীগ বিশেষ ভাবে সহযোগিতা করছে। আশা করা যায় এভাবে চলতে থাকলে আগামী ১০ দিনের মধ্যে ধানকাটা শেষ হয়ে যাবে।

শেয়ার করুন
  • 17
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  





themesba-zoom1715152249
©সর্বসত্ত্ব সংরক্ষিত।
Developed By: Nagorik IT