রবিবার, ০৭ মার্চ ২০২১, ০৭:৫০ পূর্বাহ্ন২২শে ফাল্গুন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

নোটিশঃ
ওয়েবসাইটে আপনাকে স্বাগতম। নাগরিক আইটি থেকে কম মূল্যে ওয়েবসাইট বানাতে আজই যোগাযোগ করুন। কল করুন- ০১৫২১ ৪৩৮৬০১
সংবাদ শিরোনাম :
এইচ টি ইমাম এর মৃত্যুতে আলহাজ্ব মতিউর রহমানের শোক জগন্নাথপুরের ১১৪ নং দক্ষিণ প্রভাকরপুর সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটি গঠন দক্ষিণ সুনামগঞ্জে লোকনাথ পূজাঁয় প্রতিপক্ষের চুরিকাঘাতে নিহত ১ আহত ২জন বীর মুক্তিযোদ্ধা এড. বজলুল মজিদ চৌধুরী খসরু”র রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় দাপন সম্পন্ন ফতেপুর ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান রনজিত চৌধুরী রাজনকে হত্যা করার চেষ্টার অভিযোগ বহুবিবাহ ঠেকাতে বিবাহ পদ্ধতি ডিজিটাল করা জরুরি : ফররুখ শাহজাদ চলে গেলেন বীর মুক্তিযোদ্ধা এডভোকেট বজলুল মজিদ চৌধুরী খসরু ই‌ন্তেকাল বঙ্গবন্ধু ফাউন্ডেশন যুক্তরাজ্য শাখার উদ্যোগে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস পালিত হাওর ভাতা প্রাপ্যতার দাবিতে শিক্ষকদের মানববন্ধন ও স্মারকলিপি প্রদান ভাষা শহীদদের প্রতি পুরুষ অধিকার সংগঠনের শ্রদ্ধা নিবেদন
জামালগঞ্জে প্রভাবশালীদের কবল থেকে জলমহাল রক্ষাকরে ইজারাপ্রাপ্ত সদস্যদের মৎস্য আহরণের দাবীতে অভিযোগ

জামালগঞ্জে প্রভাবশালীদের কবল থেকে জলমহাল রক্ষাকরে ইজারাপ্রাপ্ত সদস্যদের মৎস্য আহরণের দাবীতে অভিযোগ

বিশেষ প্রতিনিধি ঃ সুনামগঞ্জ জেলার জামালগঞ্জ উপজেলার করালজান গ্রুপ জলমহালটি বহিরাগত প্রভাবশালী মহাজনদের হাত থেকে রক্ষা করে ইজারাপ্রপপ্ত সমিতির সদস্যদের মৎস্য আহরণের দাবিতে জেলা প্রশাসক, পুলিশ সুপার ও জেলা সমবায় অফিসার বরাবরে অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে।

মঙ্গলবার ২০ জন মৎস্যজীবী সমিতির সদস্যদের স্বাক্ষরিত লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন হরিপুর মৎস্য সমবায় সমিতি লিমিটেড এর সাধারণ সম্পাদক ধীজেন্দ্র রায়।

অভিযোগ সুত্রে জানা যায়, মৎস্য সমিতির সাধারণ সম্পাদক, জামালগঞ্জ উপজেলার করালজান গ্রুপ জলমহালটি দীর্ঘ মেয়াদী উন্নয়ন পরিকল্পনায় ভূমি মন্ত্রনালয় থেকে ১৪২৫-১৪৩০ বাংলা সনের জন্য ইজারাপ্রাপ্ত হয়ে সরকারের জলমহাল নীতিমালা অনুযায়ী বিগত ০৩ (তিন) বছর ধরে সমিতির প্রত্যেক সদস্য পুজিঁ বিনিয়োগ করে আরোচ্য জলমহালটিতে মৎস্য সংরক্ষণ করে আসছেন।

নীতিমালা অনুযায়ী ওই বছরে ১৪২৭ বাংলা জলমহালটিতে মৎস্য আহরণের কথা রয়েছে।

কিন্তু সমিতির সভাপতি প্রভীর রায় ও তাঁর আপন ভাই সমিতির সহ সভাপতি প্রভাকর রায় মৎস্য আহরণের মৌসুমে শুরুতেই এলাকার কিছু প্রভাবশালী মহাজন ও চিহ্নিত সন্ত্রাসী, ডাকাত শ্রেণীর লোকজনকে নিয়ে আরোচ্য জলমহালটিটিতে মৎস্য আহরণ করে লুটপাট করে নিয়ে যাচ্ছে।

অভিযোগে বলা হয়, মিতির নিরিহ প্রকৃতির কোন সদস্য জলমহালটিতে দীর্ঘ গত ৩ বছর ধার-দেনা করে বিনিয়োগ-শ্রমঘামের মাধ্যমে মৎস্য সংরক্ষণ করার পরেও অভিযুক্ত প্রভাকর রায় ও প্রভীর রায় জোরপূর্বক সদস্যদেরকে জলমহাল থেকে বিতারিত করে। অন্যান্য সদস্যদের ন্যায্য পাওনা ও মৎস্য আহরণের সুযোগ থেকেও বঞ্চিত রেখেছেন।

অসহায় মৎস্য সমিতির সদস্যরা তাঁদের ন্যায্য পাওনা আদায়ের জন্য এবং অভিযুক্ত প্রভাকর রায় ও তার সহোদর প্রভীর রায়ের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহন করার দাবি জানিয়েছেন মৎস্যজীবীরা।

শেয়ার করুন
  • 34
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  





themesba-zoom1715152249
©সর্বসত্ত্ব সংরক্ষিত।
Developed By: Nagorik IT