বুধবার, ০২ ডিসেম্বর ২০২০, ০৭:০৩ অপরাহ্ন১৭ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

নোটিশঃ
ওয়েবসাইটে আপনাকে স্বাগতম। নাগরিক আইটি থেকে কম মূল্যে ওয়েবসাইট বানাতে আজই যোগাযোগ করুন। কল করুন- ০১৫২১ ৪৩৮৬০১
সংবাদ শিরোনাম :
ছাতকে মধ্যরাতে জায়গা দখল করে ঘর নির্মাণ-গ্রেপ্তার ১ সুনামগঞ্জে সহকারী শিক্ষক সমিতির উদ্যোগে হারিছ উদ্দিনের স্বরণ সভা অনুষ্ঠিত সুনামগঞ্জে বর্ণাঢ্য আয়োজনের মধ্যদিয়ে মৎস্যজীবি লীগের প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালন হাওর বিষয়ক মন্ত্রণালয় বাস্তবায়ন আন্দোলন ফোরামের সংবাদ সম্মেলন স্বাস্থ্য পরিদর্শক ও স্বাস্থ্য সহকারীরা বেতন বৈষম্য নিরসনের দাবীতে কর্মবিরতি পালন নাজমুল হকের অকাল মৃত্যুতে নারী নেত্রী ফেরদৌস আরা পাখি”র শোক ও সমবেদনা দিরাই উপজেলা চেয়ারম্যানের সাথে মত বিনিময় করেন ডক্টর সামছুল হক চৌধুরী মাদ্রাসা উন্নয়নে নগদ অর্থ প্রদান করেন যুক্তরাজ্য প্রবাসী আবু বক্কর খাঁন সার্চ মানবাধিকার সংগঠনের উদ্যোগে ড. সামছুল হক চৌধুরী ও আবু বক্কর খাঁনকে সংবর্ধনা প্রদান এমপিও নীতিমালার বৈষম্য দূরীকরণের দাবীতে মানববন্ধন
তাহিরপুর উপজেলায় সুদের টাকার জন্য শিক্ষিকাকে মারধর

তাহিরপুর উপজেলায় সুদের টাকার জন্য শিক্ষিকাকে মারধর

তাহিরপুর প্রতিনিধি :: সুনামগঞ্জের তাহিরপুরে সুদের টাকার জন্য এক প্রধান শিক্ষিকাকে বেধড়ক মারপিট করেছে সুদখোর মহাজন।

বৃহস্পতিবার বিকালে তাহিরপুর উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তার কার্যালয়ের সামনে এ ঘটনাটি ঘটেছে।

এ ঘটনায় সুদখোর মহাজন উপজেলার দক্ষিন শ্রীপুর ইউনিয়নের পাঠাবুকা গ্রামের মোফাজ্জলকে বিকাল ৪ টায় তাহিরপুর থানা পুলিশ আটক করে।

আটকের পর উপজেলা শিক্ষক সমিতির সভাপতি অজয় কুমার দে সুদখোর মোফাজ্জলকে তাহিরপুর থানা পুলিশ হতে জিম্মায় ছাড়িয়ে নিয়ে আসেন। শিক্ষক সমিতির সভাপতি সুদখোর মোফাজ্জলকে ছাড়িয়ে নিয়ে আসায় ক্ষোভ দেখা দিয়েছে উপজেলার শিক্ষক শিক্ষিকাদের মধ্যে।

আহত শিক্ষিকা তাহিরপুর উপজেলার দক্ষিণ শ্রীপুর ইউনিয়নের সুলেমানপুর সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষিকা হিসেবে কর্মরত।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, শিক্ষকা বেবী রাণী তালুকদার, এক বছর আগে একই ইউনিয়নের পাঠাবুকা গ্রামের আব্দুল হকের ছেলে সুদখোর মহাজন মোফাজ্জলের নিকট থেকে ১ লাখ টাকা সুদে নেন (প্রতি মাসে ১০ হাজার টাকা সুদে)। পরবর্তীতে সুদখোর মহাজনকে তিনি প্রতি মাসে সুদের ১০ হাজার টাকা করে পরিশোধ করে আসছিলেন। এ ভাবে কয়েক মাস অতিবাহিত হওয়ার পর তাহিরপুর উপজেলা প্রাথমিক বিদ্যালয় শিক্ষক সমিতির সভাপতি অজয় কুমার দে’র মধ্যস্থতায় প্রথমে ৫০ হাজার টাকার চেক এবং দ্বিতীয় দফায় ৬০ হাজার টাকার চেকের মাধ্যমে সুদখোর মহাজন মোফাজ্জলের সাথে তিনি লেনাদেনা নিস্পত্তি করেন। কিন্তু সুদখোর মহাজন তার নিকট আরও টাকা দাবী করে আসছিলেন। এরই

ধারাবাহিকতায় শিক্ষিকা বেবী রানী বৃহম্পতিবার তাহিরপুর উপজেলা সদরে আসলে মোফাজ্জল তার কাছে টাকা দাবী করে। শিক্ষিকা টাকা দিতে অপারগতা প্রকাশ করলে তাকে বেদড়ক মারধর করে সুদখোর মহাজন মোফাজ্জল।

বিষয়টি থানায় অবগত করলে তাৎক্ষনিক তাহিরপুর থানা পুলিশ সুদখোর মোফাজ্জলকে আটক করে থানায় নিয়ে আসে।

তাহিরপুর উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষক সমিতির সভাপতি অজয় কুমার দে বলেন, ঘটনায় আটককৃত মোফাজ্জলকে আমার জিম্মায় দেয়া হয়েছে। ঘটনার দৃস্টান্তমূল বিচার হবে।

মুকসেদপর সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক দীপঙ্কর ভট্রাচায্য বলেন, থানা পুলিশ আটক করে নিয়ে যাওয়ার পর প্রধান শিক্ষক কেন সুদখোর মহাজনকে তার জিম্মায় নিয়ে আসেন তা আমাদের জানা নেই। তবে আমরা চাই সুদেখোর মহাজনকে আইনের আওতায় এনে তার বিচার হোক।

তাহিরপুর থানার ওসি আতিকুর রহমান বলেন, প্রধান শিক্ষিকাকে বেধড়ক মারধরের অভিযোগে সুদখোর মোফাজ্জলকে আটক করা হয়েছিল। আটকের পর উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষক সমিতির সভাপতি শিক্ষিকা বেবী রানী তালুকদারের স্বামীকে নিয়ে থানায় আসেন এর উপযুক্ত বিচার করে দেবেন বলে। তাই উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষক সমিতির সভাপতি অজয় কুমার দের জিম্মায় মোফাজ্জলকে দেয়া হয়েছে। উপযুক্ত বিচার না করতে পারলে তিনি তাকে আবার থানা হাজতে সোপর্দ করবেন।

শেয়ার করুন
  • 84
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  





themesba-zoom1715152249
©সর্বসত্ত্ব সংরক্ষিত।
Developed By: Nagorik IT