বুধবার, ০২ ডিসেম্বর ২০২০, ০৫:৫৬ অপরাহ্ন১৭ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

নোটিশঃ
ওয়েবসাইটে আপনাকে স্বাগতম। নাগরিক আইটি থেকে কম মূল্যে ওয়েবসাইট বানাতে আজই যোগাযোগ করুন। কল করুন- ০১৫২১ ৪৩৮৬০১
সংবাদ শিরোনাম :
ছাতকে মধ্যরাতে জায়গা দখল করে ঘর নির্মাণ-গ্রেপ্তার ১ সুনামগঞ্জে সহকারী শিক্ষক সমিতির উদ্যোগে হারিছ উদ্দিনের স্বরণ সভা অনুষ্ঠিত সুনামগঞ্জে বর্ণাঢ্য আয়োজনের মধ্যদিয়ে মৎস্যজীবি লীগের প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালন হাওর বিষয়ক মন্ত্রণালয় বাস্তবায়ন আন্দোলন ফোরামের সংবাদ সম্মেলন স্বাস্থ্য পরিদর্শক ও স্বাস্থ্য সহকারীরা বেতন বৈষম্য নিরসনের দাবীতে কর্মবিরতি পালন নাজমুল হকের অকাল মৃত্যুতে নারী নেত্রী ফেরদৌস আরা পাখি”র শোক ও সমবেদনা দিরাই উপজেলা চেয়ারম্যানের সাথে মত বিনিময় করেন ডক্টর সামছুল হক চৌধুরী মাদ্রাসা উন্নয়নে নগদ অর্থ প্রদান করেন যুক্তরাজ্য প্রবাসী আবু বক্কর খাঁন সার্চ মানবাধিকার সংগঠনের উদ্যোগে ড. সামছুল হক চৌধুরী ও আবু বক্কর খাঁনকে সংবর্ধনা প্রদান এমপিও নীতিমালার বৈষম্য দূরীকরণের দাবীতে মানববন্ধন
দুই ছাত্রীকে পিটিয়ে আহত মঈনুল হক কলেজের অধ্যক্ষ মতিউরের বিরুদ্ধে মিছিল।

দুই ছাত্রীকে পিটিয়ে আহত মঈনুল হক কলেজের অধ্যক্ষ মতিউরের বিরুদ্ধে মিছিল।

বিশেষ প্রতিনিধিঃ সুনামগঞ্জ সদর উপজেলার মঈনুল হক কলেজের অধ্যক্ষ কলেজের এইচএসসি পরীক্ষার্থী দুই ছাত্রীকে কোদালের হাতল দিয়ে পিটিয়ে আহত করেছেন। আহত ওই দুই ছাত্রীকে সুনামগঞ্জ সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এ ঘটনায় কলেজের সাধারণ শিক্ষার্থীরা কলেজের অধ্যক্ষের বিচারের দাবিতে বিক্ষোভ মিছিল করেছে।শিক্ষার্থীরা জানান, কলেজের এইচ এসসি দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্রী সাখাইতি গ্রামের তাসলিমা বেগম ও মাগুরা গ্রামের নাঈমা আক্তার নির্বাচনী পরীক্ষায় এক বিষয়ে অকৃতকার্য্য হয়। শনিবার দুপুরে কলেজে গিয়ে অধ্যক্ষ মতিউর রহমানকে তারা পরীক্ষায় অংশগ্রহণের জন্য অনুরোধ জানায়। এসময় কলেজের বাগানে কাজ রত অধ্যক্ষ মতিউর রহমান কোদালের হাতল দিয়ে ওই ছাত্রীকে বেধড়ক পিটাতে থাকেন। তাদের কান্নায় অন্যান্য শিক্ষার্থীরা এগিয়ে গিয়ে তাদের উদ্ধার করে স্থানীয় জয়নগর বাজারে প্রাথমিক চিকিৎসা দেন। পরে তাদেরকে উন্নত চিকিৎসার জন্য সুনামগঞ্জ সদর হাসপাতালে নিয়ে আসা হয়েছে। এদিকে কলেজের অধ্যক্ষের এই নির্মম আচরণে ক্ষুব্দ শিক্ষার্থীরা তাৎক্ষণিকভাবে জয়নগর বাজারে বিক্ষোভ মিছিল করে তার বিচার দাবি করেছে।
আহত ছাত্রী তাসলিমা বেগম বলেন, আমি একজন এতিম মেয়ে। অনেক কষ্ট করে লেখাপড়া করছি। স্যারকে অনুরোধ করতে গিয়েছিলাম। তিনি আমাদেরকে কোদালের হাতল দিয়ে পিটিয়ে আহত করেছেন। আমরা এখন হাসপাতালে ভর্তি হয়েছি। আহত ওই ছাত্রী জানায়, প্রায় সময়ই স্যার আমাদের সঙ্গে খারাপ আচরণ করেন। অশ্লীল কথাবার্তা বলেন।
কলেজের অধ্যক্ষ মতিউর রহমান বলেন আমি তাদেরকে মারধর করিনি শাসন করেছি।
সদর থানার ওসি মোঃ শহিদুর রহমান বলেন, আমি খবর পেয়ে দুই ছাত্রীর সঙ্গে এসে হাসপাতালে কথা বলেছি তারা বা তাদের পরিবার অভিযোগ করলে তদন্ত পূবর্ক ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

শেয়ার করুন
  • 82
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  





themesba-zoom1715152249
©সর্বসত্ত্ব সংরক্ষিত।
Developed By: Nagorik IT