বৃহস্পতিবার, ২৯ অক্টোবর ২০২০, ০২:৪৩ অপরাহ্ন১৩ই কার্তিক, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

নোটিশঃ
ওয়েবসাইটে আপনাকে স্বাগতম। নাগরিক আইটি থেকে কম মূল্যে ওয়েবসাইট বানাতে আজই যোগাযোগ করুন। কল করুন- ০১৫২১ ৪৩৮৬০১
সংবাদ শিরোনাম :
সার্চ মানবাধিকার সোসাইটি বাংলাদেশ কেন্দ্রীয় কমিটি গঠন উপলক্ষে সদস্য অভিযান স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর কঠোর হস্তক্ষেপ কামনা করে মানববন্ধন করেছে মধুরাপুর গ্রামবাসী সাংবাদিক শফিউলের প্রচেষ্টায় বিশ্বম্ভপুর উপজেলায় দ্বীনি মাদ্রাসা করার পরিকল্পনা বিশ্ববিদ্যালয় নিয়ে বিভ্রান্ত না হওয়ার আহ্বান জানান পরিকল্পনা মন্ত্রী এম এ মান্নান মানব পাচারকারী তাজুদ আলী ও মোস্তফা মিয়ার বিরুদ্ধে থানায় অভিযোগ দায়ের কুয়েতে বাংলাদেশের এম পি পাপুল গ্রেফতার সিলেট ছাড়ার আগে নগরবাসীর দোয়া চাইলেন বদর উদ্দিন আহমদ কামরান সুনামগঞ্জ সিভিল সার্জন কার্যালয়ের সামনে ১২ মাসের বেতনভাতা পরিশোধের দাবীতে চতুর্থ শ্রেণীর কর্মচারীদের অবস্থান কর্মসূচীতে পুলিশের লাঠিপেঠা, ৬ জন আটক এতেক্বাফরত ইমাম-মুয়াজ্জিনদের হাতে পৌঁছুল প্রধানমন্ত্রী ও স্বজন সমাবেশের ঈদ উপহার জিয়াউর রহমানের শাহাদাত বার্ষিকীতে যুক্তরাজ্য স্বেচ্ছাসেবক দলের লাইভ ভার্চুয়াল আলোচনা সভা
দোয়ারাবাজারে করোনা ভাইরাস সন্দেহে এক যুবক পলাতক এলাকায় আতংক-নিউ টাইমস্২৪

দোয়ারাবাজারে করোনা ভাইরাস সন্দেহে এক যুবক পলাতক এলাকায় আতংক-নিউ টাইমস্২৪

স্টাফ রিপোর্টারঃ দোয়ারাবাজারে করোনা ভাইরাস সন্দেহভাজন এক যুবক পলাতক রয়েছে। এতে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়েছে পুরো এলাকায়। ঘটনাটি ঘটেছে উপজেলার সুরমা ইউনিয়নের টেংরাটিলা গ্রামে।
জানা যায়, পশ্চিম টেংরাটিলা গ্রামের যুবক দীর্ঘদিন ধরে ঢাকার গাজীপুরে কাজ করে আসছে। গত কয়েক দিন আগে তার ঢাকায় চিকিৎসকের শরণাপন্ন হলে তাকে করোনা সন্দেহভাজন চিহ্নিত করে কোয়ারেন্টাইনে থাকার নির্দেশ দেন চিকিৎসক। এরপর গুজব রটে করোনা
রোগীদেরকে নাকি ইনজেকশন দিয়ে মেরে ফেলা হচ্ছে। গুজবের জের ধরে ঢাকা থেকে গত শনিবার পালিয়ে এলাকায় চলে আসে সে। তার পরিবারও এই ঘটনা ধাপাচাপা দিয়ে রাখার চেষ্টা করে। ঘটনা জানাজানি হলে যাওয়ার পর থেকে ওই যুবক নিখোঁজ রয়েছে। তার কোনো সন্ধান পাওয়া যাচ্ছে না।
তবে অনেকে বলছেন, বাড়িতে আসার পথে ছাতক থেকে পালিয়েছে করোনা সন্দেহভাজন এই যুবক। এদিকে তার সাথে আসা এলাকার এক মহিলা এখনো পর্যন্ত হোম কোয়ারেন্টাইনে না থেকে এলাকায় প্রকাশ্যে ঘুরে বেড়াচ্ছেন বলে জানিয়েছেন স্থানীয রা। এতে পুরো এলাকায় আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়েছে।
স্থানীয়রা জানান, করোনা সন্দেহভাজন যুবকের কোনো খোঁজ খবর পাওয়া যাচ্ছেনা এবং ঢাকা থেকে তার সাথে আসা মহিলাকে কোয়ারেন্টাইনে থাকার নির্দেশ দেওয়া হলেও তা মানা হচ্ছেনা। এব্যাপারে তার পরিবারের সাথে মোবাইলে একাধিকবার যোগাযোগ করার চেষ্টা করেও কাউকেই পাওয়া যায়নি।
সুরমা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ইঞ্জিনিয়ার খন্দকার মামুনুর রশীদ বলেন, আমি পারিবারিক কাজে সিলেটে আছি। এলাকা থেকে সন্দেহভাজন যুবকের কথা জানিয়েছেন অনেকে। আমি তার পরিবারকে জানিয়েছি তাকে হোম কোয়ারেন্টাইনে রাখার জন্য। তবে এখন জানতে পারছি সে নাকি বাড়ি থেকে পালিয়েছে। খোঁজ নিয়ে জানাব।
উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. মো. দেলোয়ার হোসেন বলেন, আমরা এ ধরনের খবর পেয়ে খোঁজ নেওয়ার জন্য সকালে তার বাড়িতে স্বাস্থ্যকর্মী পাঠিয়েছিলাম। কিন্তু তাকে এবং তার পরিবারের কোনো সদস্যদেরক বাড়িতে পাওয়া যায়নি। জানতে পেরেছি ঢাকায় তাকে করোনা সন্দেহভাজন হিসেবে চিহ্নিত করার পর সে সেখান থেকে পালিয়ে এসেছে। তাকে না পাওয়ায় সুনির্দিষ্ট ভাবে কিছু বলা যাচ্ছে না।
দোয়ারাবাজার উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সোনিয়া সুলতানা বলেন, এলাকা থেকে অভিযোগ এসেছে। তাকে হোম কোয়ারেন্টাইনে থাকার নির্দেশ দেওয়া হয়েছিল। এখন সে পলাতক রয়েছে। খোঁজ খবর নেওয়া হচ্ছে। সে সত্যিই করোনা আক্রান্ত কিনা তা সুনির্দিষ্ট ভাবে বলা যাচ্ছে না।

শেয়ার করুন
  • 13
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  





themesba-zoom1715152249
©সর্বসত্ত্ব সংরক্ষিত।
Developed By: Nagorik IT