রবিবার, ০৭ মার্চ ২০২১, ০৮:৪০ অপরাহ্ন২২শে ফাল্গুন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

নোটিশঃ
ওয়েবসাইটে আপনাকে স্বাগতম। নাগরিক আইটি থেকে কম মূল্যে ওয়েবসাইট বানাতে আজই যোগাযোগ করুন। কল করুন- ০১৫২১ ৪৩৮৬০১
সংবাদ শিরোনাম :
কেক কাটা সহ নানান কর্মসূচীর মধ্যে দিয়ে সুনামগঞ্জে পুলিশের উদ্যোগে ঐতিহাসিক ৭ই মার্চ পালিত এইচ টি ইমাম এর মৃত্যুতে আলহাজ্ব মতিউর রহমানের শোক জগন্নাথপুরের ১১৪ নং দক্ষিণ প্রভাকরপুর সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটি গঠন দক্ষিণ সুনামগঞ্জে লোকনাথ পূজাঁয় প্রতিপক্ষের চুরিকাঘাতে নিহত ১ আহত ২জন বীর মুক্তিযোদ্ধা এড. বজলুল মজিদ চৌধুরী খসরু”র রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় দাপন সম্পন্ন ফতেপুর ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান রনজিত চৌধুরী রাজনকে হত্যা করার চেষ্টার অভিযোগ বহুবিবাহ ঠেকাতে বিবাহ পদ্ধতি ডিজিটাল করা জরুরি : ফররুখ শাহজাদ চলে গেলেন বীর মুক্তিযোদ্ধা এডভোকেট বজলুল মজিদ চৌধুরী খসরু ই‌ন্তেকাল বঙ্গবন্ধু ফাউন্ডেশন যুক্তরাজ্য শাখার উদ্যোগে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস পালিত হাওর ভাতা প্রাপ্যতার দাবিতে শিক্ষকদের মানববন্ধন ও স্মারকলিপি প্রদান
দোয়ারাবাজারে রেষ্টুরেন্টে অস্বাস্থ্যকর পরিবেশে খাবার বিক্রি, নজরদারী নেই সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের

দোয়ারাবাজারে রেষ্টুরেন্টে অস্বাস্থ্যকর পরিবেশে খাবার বিক্রি, নজরদারী নেই সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের

এম এ মোতালিব ভুঁইয়াঃ
দোয়ারাবাজারে খাবার হোটেল ও রেষ্টুরেন্ট গুলোতে অস্বাস্থ্যকর পরিবেশে যত্রতত্র খাবার বিক্রি হচ্ছে।অধিকাংশ খাবার হোটেল ও রেষ্টুরেন্ট গুলোতে খোলা এবং নোংরা পরিবেশে তৈরি হচ্ছে সব প্রকার খাবার। এছাড়া খোলা জায়গায় ধুলাবালিতে রাখা হচ্ছে পরোটা,সিঙ্গারা,জিলাপি, সমচাসহ বিভিন্ন প্রকার খাদ্য সমগ্রী। উপজেলার বেশিরভাগ খাবার হোটেল বা রেস্টুরেন্টগুলোর বাইরের দৃশ্য চকচকে থাকলেও খাবার তৈরির জায়গা দেখলে সচেতন মানুষ আঁতকে উঠবেন। অস্বাস্থ্যকর পরিবেশে তৈরি খাবার পরিবেশন করা হচ্ছে চাকচিক্য পরিবেশে। এছাড়া খাবারে মেশানো হয় মানবদেহের জন্য ক্ষতিকারক নানা রাসায়নিক। খাবারের মান ও পরিবেশ নিশ্চিতকরণে ছোট ছোট হোটেলগুলোতে অভিযান পরিচালনা করা হলেও বড় হোটেলগুলো এর আওতায় আসছে না বলে অভিযোগ সচেতন মহলের। জানা যায়, উপজেলার অধিকাংশ হোটেল রেস্তোরাঁয় খাবারের মান নিয়ে প্রশ্ন অনেকেরই। প্রতিদিন এসব হোটেল রেষ্টুরেন্টে নিয়মনীতি না মেনে প্রকাশ্যে খোলা পরিবেশে ব্যবসা চালিয়ে গেলেও সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের নেই কোন কড়াকড়ি আরোপ। এসব রেষ্টুরেন্ট সমূহে বিক্রি হচ্ছে খাবার অনুপযোগী নিন্মমানের তেলে রান্না করা পঁচাবাসি ও অপরিষ্কার অপরিচ্ছন্ন খাবার। ফলে সর্বসাধারণ এসব খাবার ও রকমারি নাস্তা খেয়ে জটিল রোগে আক্রান্ত হয়ে পড়ছে। উপজেলার একাধিক খাবার হোটেল রেষ্টুরেন্ট ঘুরে দেখা গেছে, হোটেলের সামনে প্রদর্শনীমূলক খোলা পরিবেশে বিভিন্ন প্রকার নাস্তার ফসরা সাজিয়ে রাখা হয়েছে। কিন্তু এসব নাস্তা গুলোতে মশা-মাছি ও ধুলাবালি থেকে রক্ষার জন্য কোন প্রকার ঢাকনা ব্যবহার করতে দেখা যায়নি। মাছি সর্বত্রে বসে এবং জীবাণু ছড়াচ্ছে খাদ্য ও নাস্তা গুলোতে। অপরদিকে হোটেলের পেছনে রান্না ঘরে অস্বাস্থ্যকর পরিবেশ বিরাজ করছে বরাবরই। রান্না ঘরের পাশে অপরিকল্পিত পশ্রাব ও পায়খানা ঘর থাকলেও দুর্গন্ধ থেকে রক্ষার কোন উপায় নেই। পায়খানা-প্রশ্রারাবের দূর্গন্ধ, মশা-মাছি ও কুকুরের উৎপাত যেন লেগেই রয়েছে।
এছাড়াও খাবার হোটেল ও রেষ্টুরেন্ট গুলোর পিছনে গিয়ে দেখা যায়, কোন সুস্থ মস্তিষ্কের মানুষ এসব নোংরা পরিবেশ দেখে হোটেলে খাওয়া-দাওয়ার রুচি হারিয়ে ফেলবে নিশ্চিত । এ থেকে পরিত্রাণের কোন উপায় সাধারণ মানুষের নেই বললেই চলে।উপজেলার বগুলাবাজার,বাংলাবাজার,নরসিংপুর বাজার,চকবাজার,পশ্চিম বাংলাবাজার,মহব্বতপুর বাজার,টেংরাবাজার,টেবলাইবাজার,বালিউড়া বাজারের হোটেল রেস্তোরা গুলোতে অস্বাস্থ্যকর ও নোংরা পরিবেশে বিক্রি হচ্ছে পঁচাবাসি খাবার। অথচ যত্রতত্র ব্যাঙের ছাতার মত গড়ে উঠা এসব রেষ্টুরেন্ট গুলো দেখাশুনার জন্য সংশ্লিষ্ট নজরদারী কর্তৃপক্ষ রয়েছে। তাদের কর্তা ব্যক্তিদের যথাযথ তদারকি না থাকায় যেনতেন ভাবে চালিয়ে যাচ্ছে খাবার হোটেল ও রেষ্টুরেন্ট ব্যবসা।
এ প্রসঙ্গে জানতে চাইলে দোয়ারাবাজার উপজেলা স্যানিটারী ইন্সপেক্টর মৃদুল মহন চন্দ বলেন বিজ্ঞানসম্মত পদ্ধতি অনুশীলনের মাধ্যমে খাদ্য প্রাপ্তির অধিকার নিশ্চিত করনের লক্ষে খাদ্য উৎপাদন আমদানি প্রক্রিয়াজাতকরন মজুদসরবরাহ বিপনন ও বিক্রয় সংশ্লিষ্ঠ কার্যক্রম জোরদার করনের লক্ষে মাননীয় প্রধান মন্ত্রী শেখ হাছিনা মহোদনের ঐকান্তিক প্রচেষ্টায় নিরাপদ খাদ্য আইন ২০১৩ পাশ হয়।দোয়ারাবাজার উপজেলায় প্রতিদিনই হোটেল ও রেষ্টুরেন্ট পরিদর্শন অব্যাহত আছে,খাদ্যে বেজাল ও খাবার হোটেল ও রেষ্টুরেন্ট গুলোতে অস্বাস্থ্যকর পরিবেশ পেলেই আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।

শেয়ার করুন
  • 50
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  





themesba-zoom1715152249
©সর্বসত্ত্ব সংরক্ষিত।
Developed By: Nagorik IT