রবিবার, ২৮ ফেব্রুয়ারী ২০২১, ০৬:২১ অপরাহ্ন১৫ই ফাল্গুন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

নোটিশঃ
ওয়েবসাইটে আপনাকে স্বাগতম। নাগরিক আইটি থেকে কম মূল্যে ওয়েবসাইট বানাতে আজই যোগাযোগ করুন। কল করুন- ০১৫২১ ৪৩৮৬০১
সংবাদ শিরোনাম :
দক্ষিণ সুনামগঞ্জে লোকনাথ পূজাঁয় প্রতিপক্ষের চুরিকাঘাতে নিহত ১ আহত ২জন বীর মুক্তিযোদ্ধা এড. বজলুল মজিদ চৌধুরী খসরু”র রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় দাপন সম্পন্ন ফতেপুর ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান রনজিত চৌধুরী রাজনকে হত্যা করার চেষ্টার অভিযোগ বহুবিবাহ ঠেকাতে বিবাহ পদ্ধতি ডিজিটাল করা জরুরি : ফররুখ শাহজাদ চলে গেলেন বীর মুক্তিযোদ্ধা এডভোকেট বজলুল মজিদ চৌধুরী খসরু ই‌ন্তেকাল বঙ্গবন্ধু ফাউন্ডেশন যুক্তরাজ্য শাখার উদ্যোগে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস পালিত হাওর ভাতা প্রাপ্যতার দাবিতে শিক্ষকদের মানববন্ধন ও স্মারকলিপি প্রদান ভাষা শহীদদের প্রতি পুরুষ অধিকার সংগঠনের শ্রদ্ধা নিবেদন মাতৃভাষা দিবস উপলক্ষে মুক্তিযোদ্ধা কমপ্লেক্সে স্থাপিত শহীদ মিনারে পুষ্পস্তবক অর্পণ ভাষা দিবসে পরিকল্পনা মন্ত্রী এম এ মান্নান ও প্রশাসনসহ বিভিন্ন সংগঠনের শ্রদ্ধা জ্ঞাপন
“প্যানেল মেয়র হোসেন আহমেদ রাসেলকে” শ্রীঘরে পাঠিয়েছেন আদালত।

“প্যানেল মেয়র হোসেন আহমেদ রাসেলকে” শ্রীঘরে পাঠিয়েছেন আদালত।

স্টাফ রিপোর্টারঃ
জেলা প্রশাসন কার্যালয়ের কর্মচারীকে মারধরের অভিযোগে দায়ের করা মামলায় সুনামগঞ্জ পৌরসভার প্যানেল মেয়র হোসেন আহমেদ রাসেলকে কারাগারে পাঠিয়েছেন আদালত। মামলা সূত্রে জানা যায়, বিগত কয়েক মাস আগে জেলা প্রশাসনের কার্যালয়ের কর্মচারী জাকারিয়া তার ছোটবোনের বিয়ের কাঠের আসবাবপত্র পৌর শহরের ষোলঘর এলাকার একটি ফার্নিচারের দোকান থেকে ক্রয় করে ট্রাকে তোলার সময় রাস্তায় সামান্য যানজটের সৃষ্টি হওয়ায় সুনামগঞ্জ পৌরসভার ১ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর হোসেন আহমদ রাসেল ট্রাকচালককে গালিগালাজ করেন এবং একপর্যায়ে মারধর শুরু করেন। তখন জাকারিয়া এগিয়ে গেলে তাকেও মারধর শুরু করেন কাউন্সিলর হোসেন আহমদ রাসেল। কাউন্সিলর তখন মাতাল অবস্থায় ছিলেন বলেও মামলায় উল্লেখ করা হয়। এসময় জাকারিয়া নিজেকে ডিসি অফিসের কর্মচারী হিসেবে পরিচয়পত্র দেখিয়ে মারধর না করতে অনুরোধ করলেও রাসেল তাকে মারধর করেন এবং পরে তাকে পৌরসভায় নিয়ে আবার মারধর করেন। আদালত সূত্রে জানা যায়, এ ঘটনায় প্যানেল মেয়র হোসেন আহমেদ রাসেল হাইকোর্ট থেকে জামিন নিয়েছিলেন। জামিনের মেয়াদ শেষ হয়ে যাওয়ার পর তিনি হাজিরা না দেওয়ায় আদালত তার বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পারোয়ানা জারি করে এবং গ্রেফতারি পারোয়ানা জারির পর সুনামগঞ্জ চিফ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে হাজির হলে আদালত তাকে সুনামগঞ্জ জেলা কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন আদালত। কোর্ট পরিদর্শক আশিক সুজা মামুন বলেন, হাইকোর্ট থেকে নেওয়া জামিনের মেয়াদ শেষ হওয়ার পর আদালতে উপস্থিত না হওয়ায় তার বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পারোয়ানা জারি হলে তিনি আদালতে উপস্থিত হন। এসময় আদালত তাকে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন। এছাড়া, সুনামগঞ্জ প্যানেল মেয়র ও ১ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর হোসেন আহমেদের ভিজিএফের চাল আত্মসাতের ঘটনায় জড়িত থাকার প্রমাণও পেয়েছে জেলা প্রশাসন। হোসেন আহমেদ রাসেল গেল বছরের ৪ এপ্রিল রোহিঙ্গাদের ভুয়া জন্মনিবন্ধনে সহায়তা করার অপরাধে পুলিশ বাদী হয়ে হোসেন আহমেদ রাসেলসহ ৪ জনের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করে। সোমবার দুপুরে সুনামগঞ্জ চিফ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের সিনিয়র জুডিসিয়াল বেলাল উদ্দিনের আদালতে হাজির হলে তাকে জেলা কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেওয়া হয়।

শেয়ার করুন
  • 71
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  





themesba-zoom1715152249
©সর্বসত্ত্ব সংরক্ষিত।
Developed By: Nagorik IT