বৃহস্পতিবার, ০৪ মার্চ ২০২১, ০৯:৩০ পূর্বাহ্ন১৯শে ফাল্গুন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

নোটিশঃ
ওয়েবসাইটে আপনাকে স্বাগতম। নাগরিক আইটি থেকে কম মূল্যে ওয়েবসাইট বানাতে আজই যোগাযোগ করুন। কল করুন- ০১৫২১ ৪৩৮৬০১
সংবাদ শিরোনাম :
জগন্নাথপুরের ১১৪ নং দক্ষিণ প্রভাকরপুর সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটি গঠন দক্ষিণ সুনামগঞ্জে লোকনাথ পূজাঁয় প্রতিপক্ষের চুরিকাঘাতে নিহত ১ আহত ২জন বীর মুক্তিযোদ্ধা এড. বজলুল মজিদ চৌধুরী খসরু”র রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় দাপন সম্পন্ন ফতেপুর ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান রনজিত চৌধুরী রাজনকে হত্যা করার চেষ্টার অভিযোগ বহুবিবাহ ঠেকাতে বিবাহ পদ্ধতি ডিজিটাল করা জরুরি : ফররুখ শাহজাদ চলে গেলেন বীর মুক্তিযোদ্ধা এডভোকেট বজলুল মজিদ চৌধুরী খসরু ই‌ন্তেকাল বঙ্গবন্ধু ফাউন্ডেশন যুক্তরাজ্য শাখার উদ্যোগে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস পালিত হাওর ভাতা প্রাপ্যতার দাবিতে শিক্ষকদের মানববন্ধন ও স্মারকলিপি প্রদান ভাষা শহীদদের প্রতি পুরুষ অধিকার সংগঠনের শ্রদ্ধা নিবেদন মাতৃভাষা দিবস উপলক্ষে মুক্তিযোদ্ধা কমপ্লেক্সে স্থাপিত শহীদ মিনারে পুষ্পস্তবক অর্পণ
প্রিয় আইয়ুব বখত জগলুল ছিলেন সৎ নির্ভীক সাহসী যোদ্ধা।

প্রিয় আইয়ুব বখত জগলুল ছিলেন সৎ নির্ভীক সাহসী যোদ্ধা।

বিশেষ প্রতিনিধিঃ আইয়ুব বখত জগলুল ছিলেন একজন র্নিলোভ মানুষ,ব্যাক্তি জীবনে তিনি ছিলেন অত্যন্ত সৎ মানুষ, আওয়ামী লীগের জন্য ছিলেন নিবেদিত প্রান। তিনি দীর্ঘ যুগের পর যুগ পর্যন্ত সুনামের সাথে একাধারে ছাত্রলীগ,যুবলীগ,এবং বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ সুনামগঞ্জ জেলার সাধারণ সম্পাদক হিসেবে অনেকদিন দায়িত্ব পালন সহ এবং সুনামগঞ্জ পৌরসভার মেয়র হিসেবে সুনামের দায়িত্ব পালন করেন। মৃত্যুর পূর্ব পর্যন্ত তিনি বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের জাতীয় কমিটির সদস্য হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। সাদামাটা মানুষটিকে সুনামগঞ্জের মানুষ একজন সৎ ও দক্ষ রাজনীতিবীদ হিসেবে জানেন। তার মৃত্যুতে সুনামগঞ্জের মানুষ একজন সৎ, দক্ষ ও ত্যাগী রাজনীতিবীদকে হারিয়ে ছিল। আইয়ুব বখত জগলুল ছিলেন বাংলাদেশ আওয়ামীগের সৎ ও ত্যাগী নেতা। তিনি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের আদর্শের সৈনিক ছিলেন। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাও তাকে একজন সৎ ও ত্যাগী রাজনীতিবীদ হিসেবে জানেন। মহান আল্লাহর কাছে এই দোয়া মোনাজাত করি, আল্লাহ যেন এই সৎ, র্নিলোভ মানুষটিকে জান্নাতের নসিব করেন। মোর নাম এই বলে খ্যাত হোক, আমি তোমাদের-ই লোক”। রাজনৈতিক যে কোন মিটিংয়ে দাঁড়িয়ে প্রায়ই তিনি কবি গুরুর কবিতার এ চরণ দুটো উচ্চারণ করতেন। না। তাঁর এই কবিতার চরণ উদ্ধৃতি বৃথা যায়নি। সত্যিই তিনি মানুষের ভালবাসা পেয়েছেন। পেয়েছেন মানুষকে ভালবাসতেন বলে। তাঁর সান্নিদ্ধে এসে ভালবাসা শিক্ত হয় নি, তেমন মানুষ অন্ততঃ ধরলার উত্তর পাড়ে খুঁজে পাওয়া দায়। যে জন সকলকে ভালবাসতে পারেন; তাকে ভালো না বেসে উপায় কী থাকে (?) পথে ঘাটে অফিস আদালতে যেখানেই তার সাথে কারো দেখা হত, দু’ হাত বাড়িয়ে কাছে টানতেন। তিনি একজন মুজিব আর্দশের লড়াকু সৈনিক ও জননেত্রী শেখ হাসিনার একনিষ্ঠ সহচর হিসেবে আমৃত্যু দায়িত্ব পালন করেছেন বিশেষ করে তিনি খুব আদর করে আমাকে তুই বলেই বলতেন বেশি। আর ‘তুই’ শব্দটাতেই থাকতো যেন জাদুর কাঠি। বিনম্র শ্রদ্ধায় আপ্লুত হতো সবাই। পথে-ঘাটে দেখা না পেলে কেউ তাঁর বাড়িতে দেখা করতে গেলে শুধু মুখে ফিরে এসেছেন এমনটা হয়তো নেই।তাঁর ছিলো এক বর্ণাঢ্য রাজনৈতিক জীবন। প্রকৃতি-সৃষ্টির বিধানে যেভাবে সকলকে ছেড়ে চলে যেতে হয় এক অজানা জগতে। গত ১লা ফেব্রুয়ারি ২০১৮ তারিখে তিনিও সেই বর্ণাঢ্য জীবন শেষে চলে গেছেন পরলোকে । কারো শূণ্যতায় যেমন কিছু আটকে থাকে না কিন্তু যেভাবে চলার কথা তেমন ভাবেও চলেনা। তাই যার কথা এতোক্ষণ বলার চেষ্টা করা হলো সেই ব্যক্তির শূণ্যতাও বুঝিবা পূরণ হবার নয়। তিনি অন্য কেউ নন, দেশ বরেণ্য সুনামগঞ্জ জেলার আপামোর জনগনের ভালবাসার আইয়ুব বখত জগলুল।

শেয়ার করুন
  • 836
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  





themesba-zoom1715152249
©সর্বসত্ত্ব সংরক্ষিত।
Developed By: Nagorik IT