শনিবার, ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১২:৫৮ পূর্বাহ্ন১০ই আশ্বিন, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

নোটিশঃ
ওয়েবসাইটে আপনাকে স্বাগতম। নাগরিক আইটি থেকে কম মূল্যে ওয়েবসাইট বানাতে আজই যোগাযোগ করুন। কল করুন- ০১৫২১ ৪৩৮৬০১
সংবাদ শিরোনাম :
৫৯টি অনিবন্ধিত অবৈধ আইপিটিভি বন্ধ করলো বিটিআরসি সুনামগঞ্জে সুরমা উত্তর পাড়ে বিভিন্ন দাবীতে মানববন্ধন ও লিফলেট বিতরণ বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা ও সাবেক হুইপ আছপিয়ার জানাজায় মানুষের ঢল নিহত পরশ মিয়ার বাবার পাশে দাঁড়ালেন শ্রমিকলীগ নেতা সেলিম আহমেদ হাজী মহসিন উল্লাহ জালু মাষ্টারের মৃত্যুতে বিভিন্ন মহলের শোক এলাকাবাসীর প্রাণের দাবী মোঃ মাসুক মিয়াকে নৌকার মাঝি হিসেবে দেখতে চায় সুনামগঞ্জ সাংবাদিক ফোরামের গঠতনন্ত্র অনুমোদিত মরণোত্তর বিচার আইন প্রণয়নের দাবীতে বঙ্গবন্ধু ফাউন্ডেশনের স্মারক লিপি প্রদান জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে যুব মহিলালীগের শ্রদ্ধা নিবেদন মহিলা শ্রমিকলীগ আয়োজিত শোক সভায় এড.জাহাঙ্গীর কবির নানক
বর-কনেসহ নৌকাডুবি তিনজনের লাশ উদ্ধার ২০জন নিখুঁজ

বর-কনেসহ নৌকাডুবি তিনজনের লাশ উদ্ধার ২০জন নিখুঁজ

বিশেষ প্রতিনিধিঃ রাজশাহীর পদ্মা নদীতে নৌকাডুবির ঘটনায় দুইজনের মরদেহ উদ্ধারের পর শনিবার সকালে জেলার চারঘাট এলাকা থেকে বোরকা পরা এক নারীর মরদেহ উদ্ধার করে বিজিবি। তবে তার নাম-পরিচয় পাওয়া যায়নি। মর্মান্তিক এই নৌকাডুবিতে এখন পর্যন্ত তিনজনের মৃত্যু হয়েছে।

বিয়ের আনুষ্ঠানিকতা শেষে ফেরার পথে শুক্রবার সন্ধ্যার পরে রাজশাহী নগরীর শ্রীরামপুর এলাকার বিপরীতে মধ্য পদ্মায় নৌকাডুবির ঘটনা ঘটে। দু’টি নৌকা ডুবে অন্তত ২০ জন নিখোঁজ হয়েছেন। এদের মধ্যে ৭-৮ জন শিশুও রয়েছে।

এদের মধ্যে দুই শিশু মারা গেছে। তারা হচ্ছে- কনে সুইটির মামাতো বোন রোশনি (৭) ও রতনের মেয়ে মরিয়ম খাতুন (৮)। অচেতন অবস্থায় তাদের উদ্ধারের পর হাসপাতালে নেয়া হলে চিকিৎসক তাদের মৃত ঘোষণা করেন।

বরের নাম রুমন আলী (২৬)। তার বাড়ি পদ্মার ওপারে পবা উপজেলার চরখিদিরপুর গ্রামে। বাবার নাম ইনসার আলী। আর কনের নাম সুইটি খাতুন (২০)। তার বাড়ি রাজশাহী শহর সংলগ্ন পবা উপজেলার ডাঙেরহাট গ্রামে। বাবার নাম শাহীন আলী।

বৃহস্পতিবার রুমন-সুইটির বিয়ে হয়। শুক্রবার দুপুরের দিকে সুইটির আত্মীয়-স্বজনরা বর-কনেকে আনতে গিয়েছিলেন। ফেরার পথে মাঝ পদ্মায় নৌকা ডুবে যায়। ঘটনার পর বর জীবিত অবস্থায় উদ্ধার হয়েছেন। এছাড়া দুই পরিবারের পাঁচজনসহ আরও ছয়জন উদ্ধার হয়েছেন। তারা হলেন খাদিমুল ইসলাম (২৩), রতন আলী (২৮) ও তার স্ত্রী বৃষ্টি খাতুন (২২), সুমন আলী (২৮) ও তার স্ত্রী নাসরিন বেগম (২২) এবং মেয়ে সুমনা আক্তার (৬)।

এদিকে দুর্ঘটনার ১২ ঘণ্টা পেরিয়ে যাওয়ায় নিখোঁজদের বেঁচে ফেরার আশা ছেড়ে দিয়েছেন স্বজনরা।

শনিবার সকাল থেকে আবারও উদ্ধার অভিযান শুরু করেছেন ফায়ার সার্ভিসের ডুবুরি দল। তাদের সঙ্গে উদ্ধার অভিযানে অংশ নিয়েছে পুলিশ ও বিজিবি। নিখোঁজ স্বজনের মরদেহের আশায় বৃষ্টি মাথায় পাড়ে অপেক্ষা করছেন পরিবারের লোকজন।

এ ব্যাপারে রাজশাহী সদর ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্সের সিনিয়র স্টেশন অফিসার আবদুর রউফ জানান, বিজিবি ও ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা যৌথ উদ্ধার অভিযান চালাচ্ছেন। কিন্তু এখনও দুর্ঘটনাকবলিত নৌকা দুটির অবস্থান জানা যায়নি। ভাটিতেও তারা উদ্ধার তৎপরতা চালাচ্ছেন।

শেয়ার করুন
  • 105
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  





themesba-zoom1715152249
©সর্বসত্ত্ব সংরক্ষিত।
Developed By: Nagorik IT