সোমবার, ১৮ অক্টোবর ২০২১, ০২:৩৫ অপরাহ্ন২রা কার্তিক, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

নোটিশঃ
ওয়েবসাইটে আপনাকে স্বাগতম। নাগরিক আইটি থেকে কম মূল্যে ওয়েবসাইট বানাতে আজই যোগাযোগ করুন। কল করুন- ০১৫২১ ৪৩৮৬০১
সংবাদ শিরোনাম :
শান্তিগঞ্জে সড়ক দুর্ঘটনায় ৩ মোটর সাইকেল আরোহী নিহত জাপার নবনিযুক্ত মহাসচিব চুন্নুকে সালমা ইসলামের ফুলেল শুভেচ্ছা সুনামগঞ্জে জাতীয় শ্রমিকলীগের ৫২তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালিত অপরাধ প্রবণতা রোধে সিসি ক্যামেরার উদ্ভোধন করেন পুলিশ সুপার মিজানুর রহমান আগামী ৩১ শে অক্টোবর সিলেটের সমাচার অনলাইন নিউজ পোর্টালের শুভ উদ্বোধন ঢাকায় সাংবাদিক নজরুলকে হুমকি,থানায় জিডি – নিউ টাইমস২৪ শিক্ষা প্রতিষ্ঠান জাতীয়করণের সময় এসে পড়েছে- পরিকল্পনা মন্ত্রী এম এ মান্নান এম পি উত্তর মল্লিকপুর মৌচাক জামে মসজিদের ১০ সদস্য বিশিষ্ট কমিটি গঠন হযরত শাহ নেংটা বাবার মাজারের ভুয়া খাদিম বাবুল মিয়ার বিরুদ্ধে ব্যাপক অভিযোগ আবারো পি পি হিসেবে নিয়োগ পেলেন ড. খাইরুল কবির রুমেন – নিউ টাইমস২৪
হযরত শাহ নেংটা বাবার মাজারের ভুয়া খাদিম বাবুল মিয়ার বিরুদ্ধে ব্যাপক অভিযোগ

হযরত শাহ নেংটা বাবার মাজারের ভুয়া খাদিম বাবুল মিয়ার বিরুদ্ধে ব্যাপক অভিযোগ

স্টাফ রিপোর্টার: হযরত শাহ নেংটা বাবার মাজারের ভুয়া খাদিম বাবুল মিয়ার বিরুদ্ধে জালিয়াতি ও মিথ্যা মামলা দিয়ে হয়রানীর অভিযোগ উঠেছে। গতকাল মঙ্গলবার সকালে জেলা প্রশাসক ও পুলিশ সুপার বরাবরে অভিযোগটি দায়ের করেন হয়রানির শিকার শফিকুল ইসলাম। অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, ওয়াক্ফ দলিলের বিধান মোতাবেক ওয়াকিফ দুলামান্নেছা ধর্মপাশা উপজেলার আকতাপাড়া গ্রামের হযরত শাহ নেংটা বাবার মাজারের মুতাওয়াল্লী নিযুক্ত হন। ওয়াকফ মোতাবেক দোলামান্নেছার মৃত্যুর পর তার ১ম পুত্র মোতাওয়াল্লী নিযুক্ত হওয়ার কথা থাকলেও তার মৃত্যুর কারনে জালিয়াতির মাধ্যমে ওয়াকিফের ২য় পুত্র বাবুল মিয়া মোতাওয়াল্লী নিযুক্ত হন। তিনি মুতাওয়াল্লী হওয়ার পর থেকেই মাজারের টাকা তার নিজের ব্যাংক একাউন্টে জমা রাখে এবং তার নিজের মত করে টাকা উত্তোলন করে বিলাস বহুল বাড়ি ও অনেক জমির মালিক হয়ে যায়। অথচ লোক সমাজে বলাবলি করে এসব জায়গা মাজারের। তবে প্রকৃত পক্ষে নিজের নামে দলিল করে নেয়। তিনি মাজারের কোন উন্নয়নমূলক কাজ করেন নি। আরো জানা য়ায়, অভিযোগকারীর দাদী মরহুমা দুলামুন্নেছা ২০১২ সালের ৩রা অক্টোবর মৃত্যু বরণ করেন। অথচ চাচা মো: বাবুল মিয়া বিগত ০৮/০৫/২০১৫ইং সনে তার দাদীর মৃত্যুর ৩ বছর পর দাদীকে দাতা সাজিয়ে একটি ভুয়া দানপত্র সৃজন করেন। যার দানপত্র রেজি: দলিল নং ৫০৯। তার দাদীর রেখে যাওয়া ওয়াকফ মোতাবেক পিতার মৃত্যুর পর উক্ত মাজারের মুতাওয়াল্লী হওয়ার কথা ছিল শফিকুল ইসলামের। কিন্তু তাকে বঞ্চিত করে তার চাচা মাজারের মুতাওয়াল্লী সেজে এবং মাজারের কোন উন্নয়ন না করেই মাজারের লাখ লাখ টাকা হাতিয়ে নিচ্ছেন। বাবুল মিয়ার এহেন অন্যায় কাজের প্রতিবাদ করলেই সে মিথ্যা মামলা ও অভিযোগ দিয়ে নানভাবে হয়রানী করে। তারই জের ধরে গত ২রা অক্টোবর ধর্মপাশায় স্থানীয় সংবাদদিকদের সম্মুখে মিথ্যা তথ্য উপস্থাপন করে একটি কাল্পনিক সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করেন। অভিযোগকারী আরো উল্ল্যেখ করেন, আমার পিতা মরহুম লিলু মিয়া মারা যাওয়ার পর থেকেই আমার চাচা মো: বাবুল মিয়া ও তার সহযোগি কয়েকজন জোরপূর্বক সম্পুর্ন অন্যায়ভাবে হযরত শাহ নেংটার বাবার মাজারে সাধারন মানুষ ও ভক্তদের দান খয়রাতকৃত অর্থ লুটেপুটে খাচ্ছেন। বাবুল মিয়ার এসব অপকর্মের বিরুদ্ধে কথা বলতে গেলে তিনি আমাদের প্রাণনাশের হুমকি প্রদান করেন। তাই ঘটনাটি সুষ্ঠুভাবে তদন্ত করে ওয়াকফ মোতাবেক অভিযোগকারী শফিকুল ইসলামকে মাজারের মোতাওয়াল্লী পদে নিযুক্ত করার জন্য তিনি প্রশাসনের সহযোগিতা কামনা করেন।

শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  





themesba-zoom1715152249
©সর্বসত্ত্ব সংরক্ষিত।
Developed By: Nagorik IT