পঞ্চায়েতের বিরুদ্ধে মিথ্যা অভিযোগ ও সংবাদ প্রকাশিত করায় এলাকাবাসীর মানববন্ধন।

0
51

স্টাফ রিপোর্টার: সুনামগঞ্জ সদর উপজেলার লক্ষনশ্রী ইউনিয়নের হবতপুরে গ্রামের গন্যমান্য ও পঞ্চায়েতের বিরুদ্ধে মিথ্যা অভিযোগ উত্থাপন করে কুচক্রী মহলের ইন্ধনে অনাইলন নিউজ পোর্টাল ‘আজকের স্বদেশ ও স্থানীয় একটি দৈনিকে মিথ্যা ও কাল্পনিক সংবাদ প্রচারের প্রতিবাদে মানববন্ধন করেছে গ্রামবাসী। গতকাল শনিবার বিকালে ইউপি সদস্য ফখরুল মিয়ার নেতৃত্বে হবতপুর বাজারে মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়। মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেন হবতপুর জামে মসজিদের ইমাম ও বিশিষ্ট মুরুব্বী আব্দুল খালেক, খতিব আব্দুছ ছোবহান, গন্যমান্য ব্যক্তিত্ব মুজিবুর রহমান, আতাউর রহমান, গোলাপ উদ্দিন, ওয়ারিশ আলী, সুহেল মিয়া, মঈনুল ইসলাম, নবাব মিয়া, আব্দুল ওয়াহাব, রফিকুল ইসলাম,আব্দুল মতিন প্রমুখ। এ সময় বক্তারা বলেন, গত বৃহস্পতিবার বাদ আসর হবতপুর গ্রামের আবুল বাশার মসজিদের পুকুর ঘাটে পড়ে হাতে পায়ে সামান্য আঘাতপ্রাপ্ত হন। পরবর্তীতে শুনতে পারি গ্রামের ইউপি সদস্যসহ গন্যমান্য ব্যক্তি ও পঞ্চায়েতের বিরুদ্ধে একটি অনলাইন নিউজ পোর্টালে চাঁদা না দেয়ায় কলেজ শিক্ষার্থীকে পিটিয়ে ডান হাত ভেঙ্গে দেয়া হয়েছে মর্মে সংবাদ প্রকাশ করা হয়। যা আদৌ সত্য নহে। এ ধরনের অপসংবাদের তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাই। এ ঘটনার সাথে যে বা যারা জড়িত তাদের বিরুদ্ধে সরজমিন তদন্ত পূর্বক যথাযথ আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহনের জন্য পুলিশ সুপার মহোদয়ের অনুরোধ করেন। সেই সাথে মিথ্যা, উদ্দেশ্যপ্রনোতি ও বানোয়াট তথ্য উপস্থাপন করে মিথ্যঅ মামলা দায়েরের অপচেস্টার প্রতিবাদ জানান। স্থানীয় মুরুব্বী ও ইমাম আব্দুল খালেক বলেন, আবুল বাশারের চাচা ও চাচাত ভাইদের সাথে তাদের জমি জমা নিয়ে বিরোধ আছে। আর আবুল বাশার নামে ছাত্র হলেও পেশায় গরু চোর। তার বিরুদ্ধে একাধিক গরু চুরির অভিযোগ আছে এবং কয়েকবার বিচার শালিসও করা হয়েছে। তার হাত ভেঙ্গে গেছে কিনা তা নিয়েও সন্দেহ আছে। আর তার কাছ থেকে ৭০ হাজার টাকা ছিনাইয়া নেয়ার প্রশ্নই আসে না। কারণ তার নিজেরই খাওয়ার ব্যবস্থা নাই তার কাছে ৭০ হাজার টাকা থাকে কোত্থেকে? বিষয়টি তদন্ত সাপেক্ষে যথাযথ আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহনের দাবী জানাই। আর সেই সাথে মিথ্যা মামলা দিয়ে কাউকে হয়রানী করা হলে তীব্র আন্দোলন গড়ে তোলা হবে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here