প্রাকৃতিক সৌন্দর্যে পর্যটনের অমিত সম্ভাবনা কাজে লাগাতে হবে

0
228

সুনামগঞ্জ জেলার প্রাকৃতিক সৌন্দর্যের কথা নতুন করে বলার কিছু নেই। দেশের প্রধানতম পর্যটন এলাকা হিসেবে পরিচিত হাওরকন্যা খ্যাত এ জেলা। পাহাড়, টিলা, লেক আর বৈচিত্রপূর্ণ গাছগাছালিসমৃদ্ধ এ অঞ্চল পর্যটকদের বরাবরই হাতছানি দেয়। এমন প্রাকৃতিক সৌন্দর্য এবং সম্পদে পরিপূর্ণ অঞ্চল দেশে আর নেই। দুঃখের বিষয়, প্রকৃতির এই অপার দান আমরা রক্ষা করতে পারছি না। নির্বিচারে ধ্বংস করে চলেছি। পাহাড়, টিলা, গাছগাছালি কেটে প্রকৃতিকে ধ্বংস করার প্রতিযোগিতা চলছে। এ নিয়ে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের কোনো পদক্ষেপ নেই। প্রকৃতির এই দান যে রক্ষা করতে হবে, বিষয়টি উপলব্ধিই করছে না। বলার অপেক্ষা রাখে না, বাংলাদেশে পর্যটনের ব্যাপক সম্ভাবনা থাকলেও তা কাজে লাগানোর তেমন কোনো উদ্যোগ পরিলক্ষিত হয় না। অথচ বিশ্বের এমন অনেক দেশ আছে যাদের জিডিপির বেশিরভাগ জোগান দেয় পর্যটন শিল্প। নেপাল, ভুটান, মালদ্বীপের মতো দেশগুলোর জিডিপিতে পর্যটন শিল্প গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রেখে চলেছে। আমাদের দেশে পর্যটনের বিপুল সম্ভাবনা থাকলেও জিডিপিতে তার কোনো অবদান নেই বললেই চলে। এদিকটি উপেক্ষিত রয়ে গেছে। পর্যটন শিল্পকে কীভাবে কাজে লাগানো যায় এবং এ থেকে কীভাবে ব্যাপক আয় সম্ভব, তা নিয়ে পরিকল্পনার কথা খুব কমই শোনা যায়। সুনামগঞ্জের বিভিন্ন পর্যটন এলাকায় বেসরকারি ও ব্যক্তি উদ্যোগে অসাধারণ সব রিসোর্ট গড়ে তুলে আয়ের উৎস সৃষ্টি করা হয়েছে। পর্যটকরাও এখানে ছুটে আসছেন । কিšতু আমরা প্রাকৃতিক সৌন্দর্যকে কাজে না লাগিয়ে তা অবিরত ধ্বংস করে চলেছি। এমনিতেই জলবায়ু পরিবর্তনজনিত কারণে দেশের দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চল হুমকির মুখে রয়েছে। সমুদ্রপৃষ্ঠের উচ্চতা বৃদ্ধি পাচ্ছে, লবণাক্ততা ভূমি গ্রাস করে চলেছে। এ পরিস্থিতিতে যেখানে পাহাড়, টিলা, বন সংরক্ষণ এবং বৃদ্ধি করা প্রয়োজন, সেখানে ধ্বংসলীলা চালানো হচ্ছে। এর চেয়ে আত্মবিধ্বংসী কাজ আর কী হতে পারে! আমাদের কথা স্পষ্ট, পাহাড়, টিলা, বন সম্পদ যে কোনো মূল্যে রক্ষা করতে হবে। কোনো অজুহাতেই এসব ধ্বংস করা যাবে না। উন্নয়ন কর্মকান্ড পরিবেশ বান্ধব করে চালাতে হবে। যেসব উন্নয়নমূলক প্রকল্প চলছে, সেগুলো পরিবেশবান্ধব কিনা, তা পুনরায় যাচাই করা প্রয়োজন। এ কথা মনে রাখা প্রয়োজন, অর্থনৈতিক উন্নয়নের জন্য যেমন প্রকল্পের প্রয়োজন, তেমনি অর্থনীতির অমিত সম্ভাবনাময় পর্যটন শিল্পের উন্নয়নও জরুরি। প্রশাসনসহ জনসাধারনের সহযোগিতায় এ পর্যটন শিল্পের অপার সম্ভাবনাকে কাজে লাগাতে হবে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here